শনিবার ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

বাজে ব্যাটিংয়ের পরও প্রথম দিন বাংলাদেশের প্রাপ্তি ৫ উইকেট

অনলাইন ডেস্ক   |   বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩   |   প্রিন্ট   |   90 বার পঠিত

বাজে ব্যাটিংয়ের পরও প্রথম দিন বাংলাদেশের প্রাপ্তি ৫ উইকেট

ছবি : সংগৃহীত

মিরপুরের উইকেট বরাবরই কিছুটা মন্থর হয়ে থাকে। এমন উইকেটে নিয়মিত খেলার অভ্যাস থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশের ব্যাটাররা নিউজিল্যান্ডের বোলারদের বিপক্ষে লড়তে পারেননি। মুশফিকুর রহিম ও শাহাদাত হোসেন দীপুর ৫৭ রানের জুটিতে কোনোরকমে ১৭২ রান করতে পারে তারা। তবে খারাপ ব্যাটিংয়ের প্রভাব খুব একটা পড়েনি। শেষ ঘণ্টায় ব্যাটিংয়ে নেমে নিউজিল্যান্ড ৫৫ রান তুলতেই হারায় ৫ উইকেট। তাতে বলাই যায় বাজে ব্যাটিংয়ের পরও ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনটি বাংলাদেশের।

বুধবার (৬ ডিসেম্বর) মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ঠিক যেমন শুরুর প্রয়োজন ছিল, সেটা করতে পারেননি বাংলাদেশের দুই ওপেনার জাকির হাসান ও মাহমুদুল হাসান জয়। দুজনই উইকেট বিলিয়ে দিয়েছেন দলীয় ২৯ রানে। তাদের হারিয়ে চাপে পড়া বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরানোর দায়িত্ব ছিল অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ও অভিজ্ঞ মুমিনুল হকের। কিন্তু এজাজ প্যাটেলের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে মুমিনুল বিদায় নেন দুই অঙ্কে (৫) পৌঁছানোর আগেই।

মুমিনুল সাজঘরে ফেরার পর স্কোরবোর্ডে আরও ৬ রান উঠতেই অধিনায়ক শান্তও বিদায় নেন। ৪৭ রানে টপ অর্ডারের ৪ ব্যাটারকে হারিয়ে খেই হারানো বাংলাদেশের হাল ধরেন অভিজ্ঞ মুশফিক ও তরুণ ব্যাটার দীপু। দুজন মিলে ১৫৪ বলে ৫৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ জুটি গড়েন। মুশফিক হাত দিয়ে বল আটকে ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড’ আউট না হলেও জুটিটা আরও বড় হতে পারতো। কিন্তু মুশফিকের ওই আউটেই মূলত ছন্দপতন ঘটে। ৮৩ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় মুশফিক খেলেন ৩৫ রানের ইনিংস।

মুশফিক আউট হওয়ার পর দীপু দ্রুত রান তুলতে গিয়ে আউট হন ৩১ রানে। এরপর লেজের ব্যাটারদের দৃঢ়তায় বাংলাদেশ দল ১৭২ রান তুলতে পারে। মিরাজ ২০, নাঈম হাসান ১৩ ও শরিফুল ইসলামের ব্যাট থেকে আসে ১০ রানের ইনিংস। সব মিলিয়ে ৬৬.২ ওভারে অলআউট হয় বাংলাদেশ।

প্রথম দিনের প্রথম ঘণ্টায় মিরপুরের উইকেটে নিউজিল্যান্ডের স্পিনাররা যেভাবে আধিপত্য দেখিয়েছেন তাতে বাংলাদেশের স্পিনারদের জন্যও ভালো কিছুর অপেক্ষা ছিল। এজাজ প্যাটেল, মিচেল স্যান্টনার, গ্লেন ফিলিপস- তিন কিউই স্পিনার মিলে নেন ৮ উইকেট। বিশেষ করে সিলেট টেস্টে একাদশে না থাকা স্যান্টনার ছিলেন ভয়ংকর।

প্রথম ওভারে শরিফুলকে দিয়ে শুরু হয়েছিল বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণ। এক ওভার শেষ করেই তাইজুলের হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক শান্ত। দুই প্রান্ত থেকে মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল আক্রমণ চালিয়ে কিউই ব্যাটারদের চাপে ফেলে দেন। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে মিরাজের বল বুঝতে না পেরে বোল্ড হন ডেভন কনওয়ে। পরের ওভারে উইকেটকিপার নুরুল হাসান সোহানের দারুণ ক্যাচ অপর ওপেনার টম ল্যাথামকে সাজঘরের পদ দেখায়, তাকে ফেরান সিলেট টেস্টের নায়ক তাইজুল।

দুই ওভার বিরতির পর তাইজুলের দ্বিতীয় শিকার হন হেনরি নিকোলস। মিডঅনে লম্বা শট খেলতে গিয়ে শরিফুলের দারুণ ক্যাচ হন কিউই এই ব্যাটার। এরপর মিরাজের অফস্টাম্পের বাইরে হালকা লাফিয়ে ওঠা বল খেলতে গিয়ে শট লেগে ক্যাচ দেন কেন উইলিয়ামসন। সেই ক্যাচ ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে নেন দীপু। তাতেই মিরাজের দ্বিতীয় শিকার হিসেবে সাজঘরে ফেরেন উইলিয়ামসন। একই ওভারের চতুর্থ বলে টম ব্লান্ডেলকে ফেরান বাংলাদেশি স্পিনার।

এরপর আলোকস্বল্পতার কারণে দিনের ৮.২ ওভার আগেই প্রথম দিনের খেলা বন্ধ করে দেন দুই ফিল্ড আম্পায়ার। তাতে ৫৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করে সফরকারী নিউজিল্যান্ড। ১১৭ রান পিছিয়ে থেকে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিন শুরু করবে কিউইরা।

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে অফস্পিনার মিরাজ ১৭ রান খরচায় শিকার করেন তিনটি উইকেট। এছাড়া ২৯ রান খরচায় তাইজুলের পকেটে গেছে দুটি উইকেট।

Facebook Comments Box

Posted ৫:২৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩

ajkersangbad24.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক
ফয়জুল আহমদ
যোগাযোগ

01712000420

fayzul.ahmed@gmail.com